ঢাকা,  বৃহঃস্পতিবার,  জুলাই ২৭, ২০১৭ | ১২ শ্রাবণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
For problem seeing Bangla click here
সদ্য খবর
English

বিদ্যুৎ জ্বালানির সব মামলা এখন থেকে বিই্আরসি ট্রাইব্যুনালে

রফিকুল বাসার

বিদ্যুৎ ও জ্বালানিখাতের কোনো মামলা এখন আর নিয়মিত আদালতে হবে না। এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের ট্রাইব্যুনালে হবে। উচ্চ আদালত থেকেও মামলা ট্রাইব্যুনালে ফেরত দেয়া হচ্ছে।
বিইআরসি আইন ২০০৩ এর অধীনে কমিশনের বিচারিক পর্ষদ হিসেবে কাজ করবে ট্রাইব্যুনাল।
বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) অধীনে একটি ট্রাইব্যুনাল গঠন করা হয়েছে। সাত সদস্যের ট্রাইব্যুনালে চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে ড. সেলিম মাহমুদকে। এছাড়া দুইজন সদস্য নিয়োগ দেয়া হয়েছে। অন্য সদস্যদেরও নিয়োগ প্রক্রিয়া চলছে। একই সঙ্গে মামলার শুনানীও শুরু হয়েছে।
ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান সেলিম মাহমুদ বলেন, কাজ শুরু করেছি। বিদ্যুৎ জ্বালানি খাতের সকল পর্যায়ের অভিযোগ ট্রাইব্যুনাল দেখবে। বাংলাদেশের নিয়মিত কোন আদালতে যাওয়া লাগবে না। যাওয়া যাবেও না। অভিযোগ বা মামলা এখানেই করতে হবে। চেয়ারম্যান জানান, বিদ্যুৎ ও জ্বালানিখাতে কয়েক হাজার মামলা আছে। এরইমধ্যে অনেক অভিযোগ আসতে শুরু করেছে। উচ্চ আদালতে চলমান অনেক মামলা সমাধানের জন্য ট্রাইব্যুনালে ফেরত পাঠিয়েছে।
আইন অনুযায়ি, ট্রাইব্যুনালের রায় চূড়ান্ত হবে। অন্য কোন আদালতে রায়ের বিরুদ্ধে আপলি করা যাবে না। তবে বাংলাদেশের সাংবিধানিক অধিকার অনুযায়ি রায়ের বিরুদ্ধে যে কেউ উচ্চ আদালতে রিট করতে পারবে। ট্রাইব্যুনালে রায়ের চূড়ান্ত অনুমোদন দেবে বিইআরসি। ট্রাইব্যুনাল রায় অনুমোদনের জন্য কমিশনকে দেবে। কমিশন তা পর্যালোচনা করে রায় দেবে।

আইন এ বলা হয়েছে, কোনো কোম্পানির লাইসেন্স নিয়ে সমস্যা হলে এই ট্রাইব্যুনালে অভিযোগ করবে। ট্রাইব্যুনাল উভয়প¶ের বক্তব্য যাচাই বাছাই করে কমিশনের কাছে নিষ্পত্তির জন্য প্রস্তাব দেবে। সা¶ীর জন্য সমন জারি করা, তাকে হাজির করা এবং সা¶ীকে যাচাই বাছাই করতে পারবে ট্রাইব্যুনাল। মামলার জন্য যেকোনো গুরুত্বপূর্ণ দলিল চাওয়া ও উপস্থাপন করতে পারবে তারা। এফিডেভিটের মাধ্যমে প্রমাণাদি সংগ্রহ করা ও যেকোনো কার্যালয় অথবা আদালতের সংর¶িত তথ্যাদি বা দলিলও চাইতে পারবে। এছাড়া ট্রাইব্যুনাল শুনানী মুলতবি করতে পারবে।
ট্রাইব্যুনাল নিজে বা কমিশনের অনুরোধে বিইআরসির আইন, বিধিমালা, নীতিমালা, চুক্তি, লাইসেন্স. পণ্যের দাম এবং নীতিমালা সংক্রান্ত বিষয়ে কমিশনকে মতামত দিতে পারবে। এমনকি বিভিন্ন বিতরণ কোম্পানির দেয়া দামের প্রস্তাব ও অন্য বিষয়ের আইনি মতামত দিতে পারবে।

এখানে মন্তব্য করুন

আপনার ইমেইল জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না

*

You can use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>